শাস্তি কাঁধে সাব্বির কেন দলে, নানা গুঞ্জন


প্রকাশিত:
২৬ জানুয়ারী ২০১৯ ১৪:০৯

Print Friendly and PDF
সংগৃহিত

ঘরের মাঠে বিপিএল শেষ করেই বাংলাদেশ পাড়ি দেবে নিউজিল্যান্ডের উদ্দেশে। এর মধ্যে ঘোষণাও করা হয়েছে নিউজিল্যান্ড সিরিজের একাদশ। সেই একাদশ নিয়ে তৈরি হয়েছে নানা বিতর্ক ও গুঞ্জন। বিতর্কের মূল কারণ একাদশে বহিস্কৃত সাব্বিরের অর্ন্তভুক্তি। গুঞ্জন রয়েছে মোটা অঙ্কের অর্থের বিনিময়ে নির্বাচকরা দলে অর্ন্তভুক্ত করেছেন সাব্বির রহমানকে।

সাব্বির রহমানের ছয় মাসের শাস্তি এক মাস কমিয়ে নিউজিল্যান্ড সিরিজের মূল দলে নেওয়ার প্রয়োজনীয়তা কেন পড়ল তা নিয়ে ক্রিকেটপ্রেমী ও ক্রীড়া বিশ্লেষকদের মনে রয়েছে নানা প্রশ্ন? সাত নম্বরে মিঠুন আলী বা সাইফুদ্দিনের চেয়েও কি সাব্বির বেশি কার্যকারী? এমন প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে কান্ট্রিনিউজ কথা বলেছে প্রধান নির্বাচক ও অধিনায়কের সঙ্গে।

কখনো দর্শক পেটানো, নারী কেলেঙ্কারি কখনো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভক্তদের সঙ্গে অশোভন আচরণ এমন নানা অভিযোগের জন্য আর্ন্তজাতিক ক্রিকেট থেকে ছয় মাসের জন্য নিষিদ্ধ ছিলেন সাব্বির রহমান। সেসঙ্গে ধারাবাহিকতার অভাবও কাল হয়েছিল তার। বিপিএলে এক ম্যাচে ৮৫ রানের একটি ইনিংস ছাড়া আহামরি কোনও অর্জন নেই তার।

“একাদশে সাব্বির কেন?” এ নিয়ে প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদনি নান্নু কান্ট্রিনিউজকে বলেন, “নিউজিল্যান্ডে বাংলাদেশের পুরনো অভিজ্ঞতা সন্তোষজনক নয়। তাই বাড়তি পরিকল্পনার দিকে চোখ বোর্ড কর্তাদের। নিউজিল্যন্ডে সব সময় গতি একটা বাড়তি বিষয়। সেই গতিকে মাথায় রেখে সাত নম্বরে ব্যাট করতে পারে এমন একজন বাড়তি ব্যাটসম্যান আমরা খুঁজছিলাম। সেক্ষেত্রে অধিনায়ক মাশরাফির পছন্দ সাব্বির। আমরা দল তৈরিতে অধিনায়কের পছন্দের ওপর গুরুত্ব দিয়েছি।”

সাব্বিরের প্রসঙ্গে বাংলাদেশ ওয়ানডে দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা কান্ট্রিনিউজকে বলেন, “ও (সাব্বির) দ্রুত রান তুলতে পারে এবং ভালো গতির বল খেলতে পারে; তাই জাতীয় দলে নেওয়া হয়েছিল, বড় ইনিংস খেলার সামর্থ্য ছিল ওর। তার কাছে আসলে আমাদের আশা অনেক। আশা করি সে এটা ধরে রাখবে।”

ম্যাশ আরো বলেন, “আমি আমার পছন্দের একাদশের কথা নির্বাচকদের জানিয়েছিলাম মাত্র, কিন্তু দল তৈরিতে আমার কোন জোর ছিল না। নিউজিল্যান্ডে বোলারেরা বাড়তি গতি পেয়ে থাকে, সাব্বির ভালো গতির বল খেলতে পারে। সেসঙ্গে লেগ ব্রেক বোলিংটাও সাব্বিরের জানা। দলের প্রয়োজনে কয়েক ওভার বোলিংও করতে পারবে।”

এদিকে, “সাব্বির প্রসঙ্গে ভক্তদের অনেক অভিযোগ রয়েছে। বাংলাদেশ টিমের পাইপলাইন কি এতই দূর্বল যে নিষিদ্ধ সাব্বিরকে শাস্তি কমিয়ে দলে নিতে হবে? গুঞ্জন রয়েছে মোটা অংকের অর্থের বিনিময়ে নির্বাচকরা দলে অর্ন্তভুক্ত করেছেন সাব্বির রহমানকে। এর ভাগিদার হয়েছেন বোর্ডের কয়েক কর্মকর্তা। যদিও এই অভিযোগের স্বপক্ষে কোনও প্রমাণ মেলেনি।” বিশ্বকাপের আগে বিসিবির এমন সিদ্ধান্ত কতটা ভালো হবে- তা বুঝা যাবে নিউজিল্যান্ড সিরিজ শেষে।

সিরিজে বাংলাদেশ খেলবে ৩টি ওডিআই ও ৩টি টেস্ট। তৃতীয়বারের মতো কোন দলের সঙ্গে বাংলাদেশ ৩ ম্যাচের টেস্ট সিরিজ খেলবে এবং নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে এটাই প্রথম।

আগামী ১৩ ফেব্রুয়ারি নেপিয়ারে প্রথম ওয়ানডের মধ্যে দিয়ে শুরু টাইগারদের যাত্রা। ১৬ ফেব্রুয়ারি ক্রাইস্টচার্চে হবে দ্বিতীয় ওয়ানডে আর তৃতীয় ওয়ানডে অনুষ্ঠিত হবে ২০ ফেব্রুয়ারি। তবে এবারের সফরে কোনও টি-টোয়েন্টি সিরিজ পাচ্ছে না টাইগাররা।

এছাড়া হ্যামিল্টনে ২৮ ফেব্রুয়ারি টেস্ট সিরিজ শুরু হবে। দ্বিতীয় টেস্টটি অনুষ্ঠিত হবে ৮ মার্চ ওয়েলিংটনে, তৃতীয় টেস্ট ১৬ মার্চে টেস্ট ক্রাইস্টচার্চে।

নিউজিল্যান্ড সিরিজের ওয়ানডে একাদশ: মাশরাফি বিন মুর্তজা (অধিনায়ক), সাকিব আল হাসান (সহ-অধিনায়ক), তামিম ইকবাল, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ, মুস্তাফিজুর রহমান, সৌম্য সরকার, লিটন দাস, মেহেদি হাসান মিরাজ, রুবেল হোসেন, মোহাম্মদ মিঠুন, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন, সাব্বির রহমান, তাসকিন আহমেদ, নাঈম হাসান।

কান্ট্রিনিউজ২৪/আরআর/এমএস