প্রসঙ্গ : হিরো আলম


প্রকাশিত:
২ জানুয়ারী ২০১৯ ১৭:০২

Print Friendly and PDF
ইন্টারনেট থেকে

বর্তমান সময়ে সব চেয়ে আলোচিত ব্যক্তিত্ব হিরো আলম। সংসদ নির্বাচনে মনোনয়নপত্র
দাখিল করায় তাঁকে নিয়ে বিভিন্ন মিডিয়াতে ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনা হচ্ছে। সঙ্গীতশিল্পী বেবি নাজনীন, কনক চাপা, মমতাজ, নায়ক ফারুক, সোহেল রানা নির্বাচন করলে যদি কারো কোনও অসুবিধা না থাকে তবে হিরো আলম করলে অসুবিধা কোথায়?

হিরো আলম কম শিক্ষিত, একজন কমেডিয়ান , দেখতে অসুন্দর এবং জিরো থেকে হিরো হওয়া মানুষ- এই তাঁর অপরাধ। তার বিরুদ্ধে কোনও মামলা নেই, ঋণ খেলাপি নয়। চাঁদাবাজ , সন্ত্রাসী কিংবা ইয়াবা ব্যবসায়ী কিংবা পাগল নয়। নায়ক, গায়ক, গায়িকাদের মতো একজন মিডিয়ার লোক।


সাজাপ্রাপ্ত ব্যক্তি, সন্ত্রাসী,চাঁদাবাজ, ঋণ খেলাপি ও ব্যাংক ডাকাতেরা যদি নির্বাচনে দাঁড়ানোর সাহস করে এবং বিভিন্ন দলের মনোনয়ন পায় , তাহলে হিরো আলম নির্বাচনে দাঁড়াতে চাইলে আমাদের এতো মাথা ব্যথা কেন?


হতে পারে সে অল্পশিক্ষিত কমেডিয়ান, কিন্তু পাগল নয়। বহু নজীর আছে লেখাপড়া না জানা অনেক লোক পার্লামেন্টে সদস্য হয়েছেন।পার্লামেন্ট সদস্য হওয়ার জন্য তাঁর সব যোগ্যতা রয়েছে।একটি টেলিভিশন টকশোতে লাইভে এনে তাঁর যোগ্যতা নিয়ে সরাসরি যেসব প্রশ্ন করা হয়েছে সত্যই সেটা অপমান জনক । তারপর ও প্রশ্নের বিপরীতে তাঁর উত্তর প্রশংসার দাবি রাখে।

কই টকশোতে নির্বাচনে প্রার্থী হওয়া কোনও দুর্নীতিবাজ, ব্যাংকডাকাত, দন্ডপ্রাপ্ত ব্যক্তি ও ইয়াবা ব্যবসায়ী রাজনীতিবিদদের লাইভে এনে তাদের সম্পদের উৎস নিয়ে সরাসরি কোনও প্রশ্ন করতে দেখি না। তাদের কে মিডিয়ার লোকজন হয়তো ভয় পায় , নয়তো ম্যানেজ হয়ে যায় ।

সুতরাং অসৎ ও দুর্নীতিবাজ তথাকথিত রাজনীতিবিদদের চেয়ে একজন সৎ পরিশ্রমি ও সেলফ মেইড মানুষ অনেক শ্রদ্ধার দাবিদার ।

আমি হিরো আলমের মতো প্রতিভাকে শ্রদ্ধার চোখে দেখার এবং তথাকথিত দূর্নীতিবাজ রাজনীতিবিদদের ঘৃণা করার জন্য সকলকে অনুরোধ করছি।

আসুন, আইনের মারপেছে মনোনয়ন পাওয়া দন্ডপ্রাপ্ত ব্যক্তি, ব্যাঙ্ক ডাকাত, সন্ত্রাসের গডফাদার ,চাঁদাবাজ ও ইয়াবা ব্যবসায়ীরা আগামী নির্বাচনে যে দল /জোট থেকে নির্বাচন করুক না কেন দেশের স্বার্থে তাদের সমর্থন না করি।

মনে রাখবেন তারা সবাই এক,শুধু ব্যক্তি স্বার্থে নির্বাচনের সময়ে বিভিন্ন দল/জোটে ভাগ হয়ে নির্বাচন করে।

লেখক : ফজলে রাব্বি

ব্যবসায়ী