বিনাদোষে জেল খাটা জাহালম যাদের বিচার চান


প্রকাশিত:
৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ ০৯:৫৬

Print Friendly and PDF
জাহালমকে দুধ দিয়ে গোসল করিয়ে ঘরে নিয়েছেন পরিবারের সদস্যরা

দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) করা ৩৩টি মামলার ‘ভুল আসামি’ জাহালম (৩২) মুক্তি পেয়েছেন। রোববার (৩ ফেব্রুয়ারি) দিবাগত রাত একটার দিকে হাইকোর্টের কাগজপত্র যাচাই করে গাজীপুরের কাশিমপুর কে‌ন্দ্রীয় কারাগার-২ তাকে মুক্তি দিয়েছে। জাহালম প্রায় তিন বছর বিনাদোষে কারাগারে ছিলেন।

দুদকের যেসব কর্মকর্তার জন্য বিনাদোষে জেল খেটেছেন, মুক্তির পর তাদের বিচার দাবি করেছেন জাহালম। তিনি বলেন, সুষ্ঠু তদন্ত ছাড়া এভাবে যেন আর কাউকে গ্রেফতার করা না হয়। আর কাউকে যেন বিনাদোষে কারাগারে যেতে না হয়।

এর আগে রোববার দুপুরে দুদকের মামলায় ‘ভুল আসামি’ মো. জাহালমকে অব্যাহতি দেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে, “জাহালমকে আর ১ মিনিটও কারাগারে দেখতে চান না উল্লেখ করে আদালত তাকে তাৎক্ষণিক মুক্তি দিতে নির্দেশ দেন।”

আদালত বলেন, “বিনা দোষে জাহালমকে কারাগারে রাখার সঙ্গে কোনো সিন্ডিকেট জড়িত কিনা সেটি সন্ধান করতে হবে।”

নিরীহ জাহালমকে গ্রেফতার ও কারাগারে বন্দী রাখার ঘটনায় দুদকের তদন্ত নিয়েও প্রশ্ন তুলেন আদালত। এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্টদের প্রতি কড়া পদক্ষেপ নেয়ার নির্দেশও দেন।

সম্প্রতি একটি জাতীয় দৈনিকের প্রতিবেদনে বিনা দোষে জাহালমের কারাগারে যাওয়ার বিষয়টি গেল সোমবার আদালতের নজরে আনেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী অ্যাড. অমিত দাশগুপ্ত। এরই প্রেক্ষিতে রোববার দুদকের মহাপরিচালক (আইন) মইনুল ইসলাম, দুদকের মামলার বাদী পরিচালক আব্দুল্লাহ আল জাহিদ, আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়রে সচিবের একজন প্রতিনিধি ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগের সচিবের মনোনীত প্রতিনিধিকে তলব করা হয়। আজ সকালে ওই ৪ জন হাইকোর্টে হাজির হন। পরে শুনানি শেষে জাহালমকে সব অভিযোগ থেকে অব্যাহতি দেন হাইকোর্ট।

কান্ট্রিনিউজ২৪/এমআর