পারভিনের কল লিস্টে মিলল খুনির পরিচয়


১৩ জানুয়ারী ২০১৯ ১২:৪৪

আপডেট:
১৩ জানুয়ারী ২০১৯ ১৩:৪৭

পারভিন আক্তার

নোয়াখালী সদরের ধর্মপুর ইউনিয়নের তরুণী পারভিন আক্তার (২০) স্বামী শেখ সেলিমের (২৯) হাতে খুন হয়েছেন বলে জানিয়েছে তদন্তকারী সংস্থা পিবিআই। পারভিনের মোবাইল ফোনে কথোপকথনের লিস্ট অনুসন্ধান করে পিবিআই সেলিশকে গ্রেফতার করে। সেলিম খুনের সঙ্গে জড়িত থাকার বিষয়টি স্বীকার করেছেন। পিবিআই তাকে জিজ্ঞাসাবাদ অব্যাহত রেখেছে।

শুক্রবার (১১ ডিসেম্বর) দিনগত রাতে চট্টগ্রামের চাটগাঁও থানা এলাকায় সেলিম পিবিআইয়ের একদল সদস্যের হাতে গ্রেফতার হন সেলিম। পরে শনিবার (২২ ডিসেম্বর) দুপুরে নোয়াখালীতে পিবিআইয়ের কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের এ ব্যাপারে বিস্তারিত জানানো হয়।

পিবিআইয়ের বিশেষ পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ইকবাল সাংবাদিকদের বলেন, “জিজ্ঞাসাবাদে শেখ সেলিম জানিয়েছেন- চট্টগ্রামে একটি পোশাক কারখানায় সেলিম-পারভিন চাকরি করতেন। চাকরির সুবাদে তাদের পরিচয়, পরিচয় গড়ায় প্রেমের সম্পর্কে এবং বিয়ে। সেলিম নিজের প্রথম স্ত্রী ও এক সন্তানের কথা গোপন রেখে গেল রমজান মাসের তিনদিন আগে পারভিনকে তিনি বিয়ে করেন। তারা বিয়ের পর ঢাকায় চলে যান। ঢাকায় থাকনে দুই মাস।”

মোহাম্মদ ইকবাল জানান, “একসঙ্গে ২ মাস ঢাকায় থাকার পর পারভিন জানতে পারেন- সেলিমের প্রথম স্ত্রী ও এক সন্তান রয়েছে। এরপর সেলিম-পারভিন সমঝোতা করে চট্টগ্রামে ফিরে যান এবং একই বাসায় এক মাস থাকেন। পারভিনের পরিবার সেলিমের আগে বিয়ের কথা জেনে গেলে তারা তাকে তিন মাস আগে গ্রামের বাড়ি নোয়াখালীতে নিয়ে যান। এরপর সেলিম বেশ কয়েকবার গ্রামে গিয়ে পারভিনের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। সেলিমের দাবি, গ্রামে নেয়ার পর পরিবার তাকে অন্যত্র বিয়ে দিতে চাচ্ছিল, এ নিয়ে পারভিনের সাথে তার দূরত্ব সৃষ্টি হয়। সেলিম এতে ক্ষিপ্ত হয়ে পারভিন হত্যার পরিকল্পনা করেন।”

কান্ট্রিনিউজ২৪/এমআর