লোক দেখানো আমলের পরিণতি জাহান্নাম


২ জানুয়ারী ২০১৯ ১৬:৫৯

আপডেট:
২৩ জানুয়ারী ২০১৯ ০৯:৫৯

ইন্টারনেট থেকে

মহান আল্লাহ তায়ালা লোক দেখানো কোন দান, লোক দেখানো কোন ইবাদত, লোক দেখানো কোন সৎ কাজ, লোক দেখানো কোন আমল পছন্দ করেন না, শুধুমাত্র আল্লাহর সন্তুষ্টির জন্য নেক আমল করুন, কারন লোক দেখানো আমলের পরিণতি হল জাহান্নাম ।

দানের পর দাতা যদি গ্রহীতাকে কোনো প্রকার কষ্ট দেয় বা তা প্রতি দান করার অনুগ্রহ প্রকাশ করে তবে দানের মর্যাদা অক্ষুন্ন থাকে না। কষ্ট প্রদান এবং অনুগ্রহ প্রকাশের ফলে দানের সাওয়াব বিনষ্ট হয়ে যায়।

ইদানীং আরো অনেক ক্ষেত্রে দান-খয়রাতের ব্যাপারে অনেক বিষয় লক্ষ্য করা যায় ! আজকাল মানুষ দান করে আল্লাহর সন্তুটি অর্জনের চেয়ে ছবি তুলে আগে ফেইসবুকে আপলোড দেওয়াটাই মূখ্য মনে করে, এই দান কখনো আল্লাহর কাছে কবুল হবে না।

সুরা বাকারার ২৬৪নং আয়াতে আল্লাহ তাআলা দানের কথা মর্যাদা অক্ষুন্ন রাখার ব্যাপারে উম্মতে মুসলিমাকে সতর্ক করেছেন। যারা দানের কথা বলে বেড়ায় তাদেরকে লোক দেখানো ইবাদতকারী ও অবিশ্বাসীদের সঙ্গে তুলনা করা হয়েছে।

অনেকেই দান-খয়রাতের ব্যাপারে জোর-জবরদস্তি করে কিন্তু সেটা ঠিক না, আমরা জানি সব সময় সবার অর্থনৈতিক অবস্থা এক রকম থাকে না। সে জন্য দান-খয়রাতের ব্যাপারে কাউকে বাধ্য করা বা জোর-জবরদস্তি করা উচিত নয়।

সাহাবি হজরত আবু হুরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিত। নবী করিম (সা.) বলেছেন, এরূপ সাতজন ব্যক্তিকে সেদিন আল্লাহ তার সুশীতল ছায়াতলে স্থান দেবেন, যেদিন তার ছায়া ছাড়া আর কোনো ছায়াই থাকবে না। … যে ব্যক্তি অত্যন্ত গোপনভাবে দান-খয়রাত করে, এমনকি তার ডান হাতে যা কিছু দান করে তার বাম হাতও তা জানতে পারে না। এরূপ ব্যক্তি যে নির্জনে আল্লাহকে স্মরণ করে এবং দু’চোখে অশ্রু ঝরাতে থাকে। -সহিহ বোখারি ও মুসলিম

আল্লাহ তা’য়ালা আমাদের সবাইকে সঠিকটা বুুঝার হেদায়াত এবং নিয়াতকে বিশুদ্ধ করার তৌফিক দান করুন!