জামানতের জন্যেও হাইকোর্টে যাবেন হিরো আলম


৪ জানুয়ারী ২০১৯ ১৬:১৫

আপডেট:
৪ জানুয়ারী ২০১৯ ২০:১২

হিরো আলম। ফাইল ফটো

নির্বাচন কমিশন (ইসি) থেকে জামানতের অর্থ ফেরত না পেলে আবারো হাইকোর্টে যাবেন বলে জানিয়েছেন হিরো আলম। তিনি একাদশ সংসদ নির্বাচনে বগুড়া-৪ আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী ছিলেন।

শুক্রবার (৪ ডিসেম্বর) সকালে কান্ট্রিনিউজের সঙ্গে আলাপকালে এ কথা বলেন তিনি।

হিরো আলম বলেন, “নির্বাচনের এই ফলাফল আমি প্রত্যাখ্যান করেছি, এই ফল আমি মানি না। আমার ভোটারদের ভোটকেন্দ্রেই ঢুকতে দেয়া হয়নি, যারা আমাকে ভোট দেবেন তারা যদি ভোটই দিতে না পারেন, তবে আমার জামানত ইসি কী যুক্তিতে আটকাবে। জামানত ফেরত না পেলে আমি আবারো মহামান্য হাইকোর্টের কাছে যাবো।”

তিনি আরো বলেন, “নির্বাচনের দিন আমার ও আমার কর্মীদের ওপর যারা হামলা করেছেন, তাদের আমি চিনে রেখেছি। আমি তাদের নামেও মামলা করব।”

প্রসঙ্গত, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রার্থী হয়ে বাংলাদেশের পাশাপাশি ভারতীয় গণমাধ্যমেও তুমুল আলোচনায় ছিলেন হিরো আলম। রেশটা এখনো কাটেনি। ইসিকে ‘হাইকোর্ট’ দেখানো হিরো আলম বগুড়া-৪ আসন থেকে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে সিংহ প্রতীকে লড়েছেন। মাত্র ৬৩৮ ভোট পেয়ে শোচনীয় পরাজয় তার। হারালেন জামানতও।

রাজনীতিবিদ না হলেও, পাঠকের কৌতুলের জায়গা থেকে হিরো আলমের পরাজয়ের সংবাদ পরিবেশন করেছে দেশের প্রায় সব গণমাধ্যম। এখনও করছে।

কিছু গণমাধ্যম হিরো আলমকে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রার্থী হিসেবে ব্যর্থ বলেছে। তবে হিরো আলম নিজেকে ব্যর্থ বলছেন না। তিনি উল্টো বগুড়া-৪ আসনের পুরো নির্বাচন ব্যবস্থাকে ব্যর্থ বলছেন। তার অভিযোগ, “তার ভোটার-সমর্থকদের ভোট কেন্দ্রে ঢুকতে দেওয়া হয়নি। ভোটের পরিবেশ সুষ্ঠু থাকলে তিনি এমপি নির্বাচিত হতেন।” তিনি জামানত ফেরত চেয়েছেন। হিরো আলমের ভাষ্য, “আমার লোকদের তো ভোটই দিতে দেয়নি। তা হলে জামানতের টাকা ফেরত দেবে না কেন?”

কান্ট্রিনিউজ২৪/এমআর