হিরো আলমকে ব্যর্থ বলল ভারতীয় গণমাধ্যম


২ জানুয়ারী ২০১৯ ১৩:২৫

আপডেট:
৩ জানুয়ারী ২০১৯ ১৯:৪০

হিরো আলম। ফাইল ফটো

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রার্থী হয়ে বাংলাদেশের পাশাপাশি ভারতীয় গণমাধ্যমেও তুমুল আলোচনায় ছিলেন হিরো আলম। রেশটা এখনো কাটেনি। নির্বাচন কমিশনকে (ইসি) ‘হাইকোর্ট’ দেখানো হিরো আলম বগুড়া-৪ আসন থেকে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে সিংহ প্রতীকে লড়েছেন। মাত্র ৬৩৮ ভোট পেয়ে শোচনীয় পরাজয় তার। হারালেন জামানতও।

রাজনীতিবিদ না হলেও, পাঠকের কৌতুলের জায়গা থেকে হিরো আলমের পরাজয়ের সংবাদ পরিবেশন করেছে দেশের প্রায় সব গণমাধ্যম। একই অবস্থা ভারতের গণমাধ্যমেও। দেশটির গণমাধ্যমগুলোও খবরটি গুরুত্ব দিয়ে ছেপেছে। দেশটির জনপ্রিয় সংবাদমাধ্যম জিনিউজ শিরোনাম করেছে -“ভোটের ময়দানে হিরোগিরি দেখাতে ব্যর্থ হিরো আলম”।

জিনিউজ তাদের প্রতিবেদেনে হিরো আলমকে বাংলাদেশের জনপ্রিয় অভিনেতা বলেছে। যদিও বাংলাদেশের মূলধারার চলচ্চিত্রে বা অভিনয়ে তার তেমন কোনও স্বীকৃতি নেই। তারা বলেছে- তার বিশাল ফ্যান-ফলোয়ার রয়েছে। অথচ সেই জনপ্রিয়তা ভোটের ময়দানে কোনও কাজেই আসেনি। ভোটাররা হিরো আলমকে প্রত্যাখ্যান করেছেন।

ভারতীয় অন্যান্য গণমাধ্যমের প্রতিবেদনও ঘুরে ফিরে একই কথা বলা হয়েছে। তারা বাংলাদেশের অভিনেতা হিসেবে হিরো আলমকে সফল বলার চেষ্টা করেছেন। আর ব্যর্থ বলেছেন; একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রার্থী হিসেবে।

তবে হিরো আলম নিজেকে ব্যর্থ বলছেন না। তিনি উল্টো বগুড়া-৪ আসনের পুরো নির্বাচন ব্যবস্থাকে ব্যর্থ বলছেন। তার অভিযোগ, “তার ভোটার-সমর্থকদের ভোট কেন্দ্রে ঢুকতে দেওয়া হয়নি। ভোটের পরিবেশ সুষ্ঠু থাকলে তিনি এমপি নির্বাচিত হতেন।” তিনি জামানত ফেরত চেয়েছেন। হিরো আলমের ভাষ্য, “আমার লোকদের তো ভোটই দিতে দেয়নি। তা হলে জামানতের টাকা ফেরত দেবে না কেন?”

কান্ট্রিনিউজ২৪/এমআর