সাংবাদিকদের ভেতর-বাহিরে মূল্যায়ন


মো. আশরাফ হোসেন ঢালী

Published: 2018-10-14 14:54:59 BdST | Updated: 2018-11-16 16:05:31 BdST

ফাইল ফটো

জন এফ.কেনেডি ছিলেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র্রের ইতিহাসের অন্যতম জনপ্রিয় প্রেসিডেন্ট। তিনি যখন নির্বাচিত হলেন , তখন প্রেস ,মিডিয়া ও সাংবাদিকরা তাঁকে ঘিরে ধরলেন তাঁর প্রতিক্রিয়া জানার জন্য। এক সাংবাদিক তাকে প্রশ্ন করলেন যে, "মিস্টার, প্রেডিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ার জন্য আপনাকে অভিনন্দন এবং এখন আপনার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা কি মার্কিন জনগণের জন্য ?" তাঁর উত্তরে প্রেসিডেন্ট কেনেডি শুধু বললেন , " আমি আমার প্রতিক্রিয়া আজ নয় , কাল জানাবো সকালের সংবাদপত্র পড়ার পর। " এটা থেকে স্পষ্ট যে , মিডিয়া , সাংবাদিকরা প্রেসিডেন্ট হিসেবে তাঁর নির্বাচিত হওয়াটাকে কিভাবে মূল্যায়ণ করলো , তা প্রেসিডেন্ট কেনেডির কাছে গুরুত্বপূর্ণ ছিল।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসে এরিক সলঅয়েল নামে ডেমোক্রেটিক পার্টির এক কংগ্রেসম্যান ‘দ্য জার্নালিস্ট প্রটেক্টশন অ্যাক্ট’ নামে একটি বিল উত্থাপন করেছেন। বিলে তিনি প্রস্তাব করেছেন, কোনো সাংবাদিককে শারীরিকভাবে আক্রমণ করলে আক্রমণকারীর শাস্তি হবে অনধিক তিন বছরের কারাদণ্ড। আক্রান্ত সাংবাদিক যদি গুরুতর আহত হন, তাহলে আক্রমণকারী ব্যক্তির কারাদণ্ড হবে অনধিক ছয় বছর। শুধু নিজেদের সুরক্ষার জন্য আমেরিকার সাংবাদিকেরা এ রকম কোনো আইন প্রবর্তনের দাবি তোলেননি, যদিও দাবি তোলার পক্ষে যথেষ্ট কারণ সৃষ্টি হয়েছে।

অবশ্য একটা সুখের সংবাদ পেয়েছি প্রতিবেশী ভারতের কাছ থেকে। গত বছর এপ্রিল মাসে মহারাষ্ট্র রাজ্যে একটি আইন পাস হয়েছে, যার শিরোনাম ‘দ্য মহারাষ্ট্র মিডিয়া পারসন্স অ্যান্ড মিডিয়া ইনস্টিটিউশনস (প্রিভেনশন অব ভায়োলেন্স অ্যান্ড ড্যামেজ অর লস অব প্রপার্টি) অ্যাক্ট’। এটাকে সংক্ষেপে সংবাদমাধ্যম সুরক্ষা আইন বলা যায়। এ আইন অনুযায়ী, মহারাষ্ট্রে কোনো সাংবাদিককে শারীরিকভাবে আক্রমণ করা, আক্রমণের চেষ্টা করা কিংবা প্ররোচিত করা, তাঁর সম্পদের ক্ষতিসাধন করা, কোনো সংবাদপ্রতিষ্ঠানের সম্পদের ক্ষতিসাধন করা দণ্ডনীয় অপরাধ। অপরাধের শাস্তি অনধিক তিন বছর কারাদণ্ড, ৫০ হাজার রুপি জরিমানা অথবা একই সঙ্গে উভয় দণ্ড। এ ছাড়া অপরাধের শিকার সাংবাদিকের চিকিৎসার ব্যয় বহন করা, তাঁর কোনো সম্পদের ক্ষতি করে থাকলে ক্ষতিপূরণ দেওয়া। মামলার অভিযোগ কগনিজিবল বা আমলযোগ্য এবং আসামি জামিন লাভের অযোগ্য। শুধু উচ্চপদস্থ পুলিশ কর্মকর্তারাই মামলার তদন্ত করবেন।

মহারাষ্ট্রে আইনটি প্রণীত হয়েছে ভারতের সাংবাদিকদের দীর্ঘদিনের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে। দেশটির ন্যাশনাল ইউনিয়ন অব জার্নালিস্টস দীর্ঘদিন ধরে রাজ্যে রাজ্যে সাংবাদিক ও সংবাদপ্রতিষ্ঠানের সুরক্ষার জন্য একটি আইনের দাবি জানিয়ে আসছিল। মহারাষ্ট্রে সাংবাদিকদের সংগঠনটি জেলা পর্যায়েও বেশ সক্রিয়। দাবিটা সাংবাদিকেরাই তুলেছিলেন, রাজ্য সরকার তাঁদের দাবি মেনে নিয়ে আইনটি পাস করে দেশ–বিদেশের বিভিন্ন সংগঠনের অভিনন্দন পেয়েছে। ইন্টারন্যাশনাল ইউনিয়ন অব জার্নালিস্টস (আইএফজে) মহারাষ্ট্র রাজ্য সরকারের প্রশংসা করেছে।

আমাদের দেশে সাংবাদিকদের সঙ্গে সরকার বাহিনী যে আচরণ ! হেলমেটধারী দুর্বৃত্তদের আক্রমণের শিকার হলেন কমপক্ষে ১২ জন সাংবাদিকসহ প্রায় ৩০ জন মানুষ। সাংবাদিকদের কেউ কেউ গুরুতর জখম হলেন, তাঁদের ক্যামেরা ভাঙা হলো, মোবাইল ফোন কেড়ে নেওয়া হলো, একজন নারী সাংবাদিককে হেনস্তা করা হলো, কিন্তু আক্রমণকারীদের কাউকেই আইনের আওতায় আনা হলো না। প্রকাশ্য দিনের আলোয় কর্তব্যরত সাংবাদিকদের ওপর সশস্ত্র আক্রমণের ভিডিও চিত্র, স্থিরচিত্র সংবাদমাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ব্যাপকভাবে প্রচারিত হয়েছে। পুলিশ চাইলে প্রত্যেক আক্রমণকারীকে শনাক্ত ও গ্রেপ্তার করতে পারত এবং এখনো পারে, কিন্তু সে রকম কোনো চেষ্টাই করেনি। রাষ্ট্রমন্ত্রী বললেন, ‘হামলাকারীদের দ্রুত আইনের আওতায় আনার হবে’

বিষয়টা যদি সাংবাদিকদের ওপর হামলা না হতো এবং সেই হামলায় যদি সরকারপন্থী ছাত্রসংগঠনের সম্পৃক্ততা না থাকত, তাহলে কি মন্ত্রী মহোদয়ের নির্দেশ পুলিশ কর্তৃপক্ষ ইতিমধ্যে পালন করে ফেলত? আমরা জানি না। আমরা জানি, এ দেশে সাংবাদিক খুন হলেও আসামি গ্রেপ্তার হয় না, মামলার তদন্ত এগোয় না, বিচারের বাণী নীরবে–নিভৃতে কাঁদে বছরের পর বছর ধরে। বাংলাদেশে সাংবাদিকদের শারীরিকভাবে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি সব সময়ই আছে। বিশেষত জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে সাংবাদিকদের কাজ করতে হয় নানা ঝুঁকির মধ্যে। এই ঝুঁকিপূর্ণ পরিবেশ প্রকটতর হয়েছে তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারা এবং সম্প্রতি গৃহীত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের ৩২ নম্বর ধারাসহ বেশ কয়েকটি ধারার কারণে।

প্রেস, মিডিয়া, সাংবাদিকতা আধুনিক রাষ্ট্রকাঠামের অন্যতম গুরুত্বপুর্ণ ও প্রয়োজনীয় উপাদান। যার মুক্ত বিকাশ ছাড়া , রাষ্ট্রেরও বিকাশ অপূর্ণ থাকবে। তাই প্রত্যাশা থাকবে রাষ্ট্র বিকশিত হোক তার সকল উপাদানের মুক্ত বিকাশের মধ্যে দিয়ে। রাষ্ট্র্রকাঠামো তার সৌরভ ছড়াক পূর্ণ বসন্তে ..............


লেখক: মো. আশরাফ হোসেন ঢালী
সম্পাদক, জাতীয় সাপ্তাহিক শেষ সংবাদ

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


মুক্তমত বিভাগের সর্বাধিক পঠিত


বিগত কয়েক বছরে বাংলাদেশে ধারাবাহিকভাবে অতি দারিদ্র হার কমেছে। মূলত শিক...

মুক্তমত | 2017-09-28 22:41:27

সারাদেশে ধর্ষণ এখন নিত্যদিনের ঘটনা। বর্তমান সময়ে টেলিভিশন, সংবাদপত্রসহ...

মুক্তমত | 2018-03-07 19:56:28

দেশের আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর নাম পুলিশ। জনগণের জানমালের নিরাপত্ত...

মুক্তমত | 2018-02-26 11:26:06

অনেককেই দেখা যায় গ্র্যাজুয়েশন শেষ করেও চাকুরী হয় না। অনেকে লিখিত পরীক্...

মুক্তমত | 2017-10-03 17:39:28

বাংলাদেশের অর্থনীতির বিবর্তন সত্যি বিস্ময়কর। পাকিস্তান আমলের শোষণ, বঞ্...

মুক্তমত | 2017-10-22 09:23:56

মিয়ানমার থেকে বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের মধ্যে তিন লাখেরও বেশি...

মুক্তমত | 2017-10-13 09:01:56

বিশ্বখ্যাত সাপ্তাহিক দি ইকোনমিস্ট সম্প্রতি বাংলাদেশের মাথাপিছু আয় বিষয়...

মুক্তমত | 2017-09-29 12:38:01

মানব জাতির শিল্প চৈতন্য বোধ ও মনুষ্যত্ব বোধ বা মানুষের মানুষ ছাড়া অন্য...

মুক্তমত | 2018-03-05 11:32:36