প্রচার বিমুখ সাংস্কৃতিক প্রতিভা বিকাশে কাজ করছি : সাজু আহমেদ


নিজস্ব প্রতিবেদক

Published: 2018-03-19 14:37:02 BdST | Updated: 2018-11-16 15:35:55 BdST

সাজু আহমেদ। তরুণ সাংবাদিক, অভিনেতা, নির্মাতা ও প্রতিভাদীপ্ত সংগঠক। ঢাকা মৌলিক নাট্যদলের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি। এছাড়া মৌলিক কমিউনিকেশন নামে একটি ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান তিনি। আজ ১৯ মার্চ (সোমবার) মৌলিক কমিউনিকেশনের দুই বছর পূর্তি হচ্ছে। এই দুই প্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন কর্মকান্ড ও তার সমসাময়িক ব্যস্ততা নিয়ে কথা বলেছেন তিনি।

কান্ট্রিনিউজ: মৌলিক কমিউনিকেশনের উদ্দেশ্য ও কার্যক্রম মূলত কি ধরণের?
সাজু আহমেদ : দেখুন, দেড় যুগ ধরে সাংবাদিকতা করছি। এই সময়ে আমার একটি উপলব্ধি হচ্ছে আমাদের দেশে অনেক সাংস্কৃতিক প্রতিভা আছে যারা অনেকটাই প্রচার বিমুখ। আবারও অনেকেই আছেন যারা অল্প কিছু কাজ করেই মিডিয়ার প্রচারের আলোয় আসতে দৌড়ঝাপ করেন। তো আমার মনে হয়েছে যে সব মানুষ প্রকৃতপক্ষে প্রতিভাবান এবং অপেক্ষাকৃত প্রচারের আলোয় আসেন না, তাদের নিয়ে কিছু করা উচিৎ। তাই এই ধরণের প্রতিভাকে খুঁজে বের করে তাকে নিয়ে এই প্রতিষ্ঠানের ব্যানারে অনুষ্ঠানের আয়োজন এবং তার কাভারেজ দেয়ার মাধ্যমে তাকে উৎসাহিত করার চেষ্টা করি। এতে একে তার পারফমেন্সের একটা সুযোগ হচ্ছে পাশাপাশি সে মিডিয়াতে কাভারেজও পাচ্ছে। আমরা মনে করি এই উদ্যোগের মাধ্যমে অনেক নতুন নতুন সাংস্কৃতিক প্রতিভা বের করে আনতে পারবো। এই আয়োজনের ধারাবাহিকতায় আমরা গত ২২ ফেব্রুয়ারি নাট্যকর্মী সোহেল আহমেদ খানের একক আবৃত্তি সন্ধ্যার আয়োজন করেছিলাম। আগামী ১৬ এপ্রিল এবং ৩ মে এই ধরণের আরও দুটি অনুষ্ঠান আমাদের হাতে রয়েছে। পাশাপাশি আমরা আমাদের দেশের গুণি সাংস্কৃতিক কর্মীদের নিয়ে আলোচনা ও সম্মাননা অনুষ্ঠানের আয়োজন করে আসছি। যাতে তরুণ সাংস্কৃতিক কর্মীরা এতে উদ্বুদ্ধ হতে পারে।

কান্ট্রিনিউজ: নির্দেশনার পাশাপাশি অভিনয়ে ব্যস্ততা কেমন?
সাজু আহমেদ : সাংবাদিকতার পাশাপাশি আমার প্রাণপ্রিয় থিয়েটার সংগঠন ঢাকা মৌলিক নাট্যদল নিয়েই মূল ব্যস্ততা। এর বাইরে টিভি নাটকে নিয়মিতভাবে অভিনয় করছি। ধারাবাহিক নাটকের মধ্যে জিএম সৈকতের এটিএনবাংলার ‘ডিবি’, এসএম শাহীন পরিচালিত বগুড়ার আঞ্চলিক ভাষার নাটক ‘সোনাভান’ দেওয়ান নাজমুলের ‘সুয়োরানী দুয়োরানী’ এবং এইচ আর অনিকের একটি ঈদের ধারাবাহিক নাটকে কাজ করছি। এছাড়া এইচ আর অনিকের মুক্তিযুদ্ধেও একটি টেলিফিল্মে অভিনয় করলাম সম্প্রতি যেটি আগামী ২৬ মার্চ একটি স্যাটেলাইট চ্যানেলে প্রচার হবে। দেওয়ান নাজমুলের ‘বিন্নি ধানের খই’ নামে একটি এক ঘন্টার নাটকে অভিনয়ে কথা হচ্ছে। পাশাপাশি সোহেল রানা বয়াতি ‘শরীরবৃত্তীয়’ নামে একটি স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রের কাজ করছি। এছাড়া সঞ্জীব দাস, রবিউল ইসলাম সোহেলসহ আরও কয়েকজন পরিচালকের নাটকে অভিনয়ের কথা হচ্ছে। এছাড়া বৈশাখীটিভির ‘লেডি গোয়েন্দা’ চ্যানেল আইয়ের ‘আবার আসিব ফিরে’, আরটিভির ‘ট্রাফিক সিগন্যাল’ ধারাবাহিকে কাজ করছি। এর আগে আরটিভিতে সুমন রেজার ‘দেব্বু’, কাজী টিপুর খন্ড নাটক ‘শূন্যস্থান পূরণ’, জি এম সৈকতের ‘আগুনের আর্তনাদ’ নাটকে অভিনয় করেছি। নির্মাতা মনির হোসেন জীবনের পরিচালনায় ধারাবাহিক নাটক ‘গুনীন’ একুশে টিভিতে এবং ‘নীলছায়া’ বিটিভিতে, জহিরুল ইসলাম পরিচালিত ‘সীমাবদ্ধ মানুষেরা’ দিগন্ত টিভিতে এবং মিনহাজ অভি পরিচালিত ঈদের ধারাবাহিক ‘শেষ অধ্যায়’ একুশে টিভিতে প্রচার হয়েছে।

কান্ট্রিনিউজ: মঞ্চে এ পর্যন্তকতগুলো নাটকে কাজ করেছেন?
সাজু আহমেদ : সবগুলো নাটকে নাম মনে নেই। তবে আমার জেলা বগুড়ার সোনাতলা থিয়েটারের হয়ে মঞ্চ নাটক ‘সুবচন নির্বাসনে’, পথ নাটক ‘ফেরারি নিশান’, ‘পাথর’, ‘পাবলিক সার্ভেন্ট’, ‘হয়তো নয়তো’, ‘মড়া’, ‘হল্লাবোল’ নাটকে অভিনয় করেছি। এর মধ্যে বেশ কয়েকটি নাটক আমি নির্দেশনা দিয়েছি। তবে বগুড়া আযিযুল হক কলেজ থিয়েটারের হয়ে আব্দুল্লাহ আল মামুনের ‘সেনাপতি’ নাটকে অভিনয় করি। এ নাটকটি নাটকের প্রতি আকৃষ্ট হওয়ার অন্যতম সূত্র। নাটকটির নির্দেশনা দিয়েছিলেন বগুড়ার প্রখ্যাত নাট্যজন আমার নাট্যগুরু তৌফিক হাসান ময়না। ঢাকায় টিভি নাটকে অভিনয় করলেও মঞ্চকেই বেশি প্রাধানা দেই। এ ছাড়া ঢাকায় গ্রীন থিয়েটারের ‘প্রকৃতির কাছে ফিরে এসো’ এবং ‘ঘুম’, স্বাধীন থিয়েটারের হয়ে ‘নীতির ইতি’ ও ‘বৃন্দাবনে রাধা’, জ্যোতি নাট্যসম্প্রদায়ের ‘অংকুর’, জেনেসিস থিয়েটারের ‘দামাল ছেলে নজরুল’ নাটকে অভিনয় করেছি।

কান্ট্রিনিউজ: ঢাকা মৌলিক নাট্যদলের নতুন প্রযোজনা কোন খবর?
সাজু আহমেদ : আমাদের নিয়মিত প্রযোজনা ‘বৃত্তে বিপ্রতীপ’, ‘অংকুর’ এবং ‘সুবচন নির্বাসনে’ নাটকের মঞ্চায়ন করছি। পাশাপাশি নতুন আরও তিনটি নাটক এ বছর মঞ্চে আনছি। এর মধ্যে ছোট ছোট দুটি রোমান্টিক নাটক এবং একটি ক্লাসিক্যাল নাটক রয়েছে। আশা করছি নাটক তিনটির মাধ্যমে দর্শকদের চমকে দিতে পারবো।


কান্ট্রিনিউজ: আপনার নির্দেশিত নাটকের সংখ্যা কত?
সাজু আহমেদ : সব মিলে ১৫টির মত হবে। এরমধ্যে আমার ঢাকা মৌলিক নাট্যদলের দুটি পথনাটক ‘পাথর’ ও ‘এই পিরিতি সেই পিরিতি নয়’ এবং মঞ্চনাটক ‘বৃত্তেবিপ্রতীপ’ ‘অংকুর’, ‘সুবচন নির্বাসনে’ নাটকের নির্দেশনা দিয়েছি। ঢাকায় এর আগে থিয়েটার ভিউ নামের একটি নাট্যদলে হয়ে ‘নাপতালী’ নামে একটি নাটকের নির্দেশনা দিয়েছিলাম। যে নাটকটির একটিমাত্র প্রদর্শনী হওয়ার পর দলটির কার্যক্রম থেমে যায়। এছাড়া বগুড়ার সোনাতলা থিয়েটারের হয়ে বেশ কয়েকটি নাটকের কথা তো আগেই বলেছি। সব মিলিয়ে আমি নির্দেশনাটাকে খুবই উপভোগ করি। পাশাপাশি অভিনয় আমার মূল সত্তা। তাই সময় সুযোগ পেলেই অভিনয়ে সময় দিই। দুটোই পাশাপাশি করতে চাই। মঞ্চ নাটকের পাশাপাশি অচিরেই টিভি নাটক নির্মাণও শুরু করব । সেখানে অবশ্যই থিয়েটার কর্মীরা প্রাধান্য পাবেন।


কান্ট্রিনিউজ: চলচ্চিত্রের কোন খবর?
সাজু আহমেদ : ১৯৯৯ সালে ঢাকায় আসার পর শাহাদাত হোসেন লিটন পরিচালিত ‘টপ লিডার’ নামের একটি চলচ্চিত্রে প্রথম ক্যামেরার সামনে দাঁড়িয়েছিলাম। এছাড়া আর চলচ্চিত্রে কাজ করা হয়নি। তবে দীর্ঘদিন পর গত বছর নির্মাতা তারেক মাহমুদ পরিচালিত ‘চটপটি’ চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছি। এ বছরে আরও দুটি চলচ্চিত্রে অভিনয়ের কথা হচ্ছে।

কান্ট্রিনিউজ: আপনি তো লেখালেখিও করেন।
সাজু আহমেদ : ২০০২ সালে আমার প্রথম কাব্যগ্রন্থ ‘স্মৃতি কেন কাঁদায়’ প্রকাশ হয়। আরও বেশ কয়েকটি পান্ডুলিপি তৈরি করেছি। প্রকাশকের সন্ধান পেলেই সেগুলো হয়তো আলোর মুখ দেখবে। গতানুগতিক ঐতিহ্য অনুযায়ি নিজের অর্থে গ্রন্থ প্রকাশ করার ইচ্ছে আমার নেই।

কান্ট্রিনিউজ: আপনার ভবিষ্যত পরিকল্পনা কি?
সাজু আহমেদ : ছোটবেলা থেকে এক ধরণের অবহেলার পরিবেশে বেড়ে উঠেছি। তাই নিজেকে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ করেছি যে সংস্কৃতির সব অঙ্গণে বিচরণ করব। যাদের কাছে অবহেলার শিকার হয়েছে তাদের কাছে দৃস্টান্ত হয়ে থাকতে চাই। সে লক্ষেই নিজেকে প্রতিনিয়ত তৈরি করছি। এই জন্য আমার প্রাণপ্রিয় সংগঠন ঢাকা মৌলিক নাট্যদল এবং মৌলিক কমিউনিকেশনের বিভিন্ন কর্মকান্ডের মাধ্যমে নিজেকে এগিয়ে নিতে চাই। সমাজ, দেশ এবং মানুষের জন্য কিছু করতে চাই।

কান্ট্রিনিউজ: জন্মদিনে কোন আয়োজন?
সাজু আহমেদ : জন্মদিন বলে কিছু নেই। মানুষের জন্ম হয় মরার জন্য। তার আগে যে কয়দিন বেঁচে থাকা ভাল ভাল কাজ করতে পারাটা সৌভাগ্যের। তবে দ্বিতীয় প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে মৌলিক কমিউনিকেশনের উদ্যোগে সোমবার সন্ধ্যায় শিল্পকলায় সাংস্কৃতিক কর্মীদের একটি আড্ডা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। প্রতিদিনকার মত কাজ সেড়ে সেখানে উপস্থিত থাকার চেষ্টা করব।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


সাক্ষাৎকার বিভাগের সর্বাধিক পঠিত


তিনি বলেন, ব্যাংকের ৪০ শতাংশ তরুণ ও উদ্যোমী কর্মকর্তারাই রূপালী ব্যাংক...

সাক্ষাৎকার | 2017-10-23 13:12:25

সদ্য দায়িত্ব নেয়া তথ্য প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম বলেছেন, নবম ওয়েজবোর্ড...

সাক্ষাৎকার | 2018-01-17 19:12:27

বাংলাদেশে নারীরা দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছেন। সমাজের সর্বক্ষেত্রে তাদের অবস্থা...

সাক্ষাৎকার | 2018-07-18 19:25:57

সাজু আহমেদ। তরুণ সাংবাদিক, অভিনেতা, নির্মাতা ও প্রতিভাদীপ্ত সংগঠক। ঢাক...

সাক্ষাৎকার | 2018-03-19 14:37:02

কৃষিখাতে ঋণ দেয়ার জন্যে বসে আছে কৃষি ব্যাংক, কিন্তু ভালো উদ্যোক্তা পাও...

সাক্ষাৎকার | 2018-10-29 18:07:49