রাজধানীতে নিত্যপণ্যের দামে আগুন


নিজস্ব প্রতিবেদক

Published: 2017-10-07 20:19:30 BdST | Updated: 2018-11-15 10:44:53 BdST

রাজধানীতে চাল-আটা, শাক-সবজি, মাছ-মাংসসহ নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের দাম বেড়েই চলেছে। সামনে এসব জিনিসপত্রের দাম আরো বাড়বে বলে জানিয়েছেন বিক্রেতারা। লাগামহীন দামে দিশেহারা নিম্ন ও মধ্যম আয়ের মানুষেরা। তাদের অভিযোগ বাজার তদারকি না থাকায় এবং ব্যবসায়ী সিন্ডিকেটরা যোগসাজশে জিনিসপত্রের দাম ইচ্চেমতো বাড়িয়ে দিচ্ছেন।

শনিবার রাজধানীর রামপুরা ও মেরাদিয়া বাজার ঘুরে দেখা গেছে, আগের বাড়তি দামে বিক্রি হচ্ছে চিকন চাল। আটা বিক্রি হচ্ছে কেজিপ্রতি ৩ থেকে ৫ টাকা বেশি দামে। সব ধরনের মাছের দাম কেজিপ্রতি ২০ থেকে ৫০ টাকা বেড়েছে। ২৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে কাঁচা মরিচ। বাজারে ৫০ টাকার নিচে কোনো সবজি নেই।

রামপুরা বাজারে বাজার করতে আসা বেসরকারি চাকরিজীবী ওবায়দুল হক বলেন, ঢাকা শহরের কোনো অভিভাবক নেই। যে যার মত করে লুটপাট করছে। সুতরাং বাঁচতে হলে রাজধানী ছেড়ে চলে যেতে হবে। দিন দিন পরিস্থিতি এমন কঠির পর্যায়ে চলে যাচ্ছে যে ডাল-ভাত খেয়ে বেঁচে থাকটাও কঠিন হয়ে যাচ্ছে।

তিনি বলেন, বাজারে সব ধরনের মাছ ও সবজির সরবরাহ অনেক। পাইকারী বাজারেও দাম স্বস্তিদায়ক। অথচ খুচরা বাজারে আসলেই দাম বেড়ে যায়। বাজারের বিক্রিতেরা সিন্ডিকেট করে আমাদের পকেট থেকে বাড়তি টাকা হাতিয়ে নিচ্ছেন।

রামপুরা বাজার ঘুরে দেখা গেছে, বাজারে কালো বেগুন ২০ টাকা বেড়ে কেজিপ্রতি বিক্রি হচ্ছে ১০০ টাকা। সাদা বেগুন বিক্রি হচ্ছে ৮০ টাকা। শিম ২০০ টাকা, হাইব্রিড টমেটো ১২০ টাকা, শসা ৭০ টাকা, চাল কুমড়া ৫০-৫৫ টাকা, কচুরলতি ৭০ টাকা, পটল ৬০ টাকা, ঢেঁড়স ৭০ টাকা, ঝিঙ্গা ৭০ টাকা, চিচিঙ্গা ৭০ টাকা, করলা ৬৫ টাকা, কাঁকরোল ৫৫ টাকা, পেঁপে ৪০-৫০ টাকা, ফুলকপি প্রতি পিস ছোট ৩৫ টাকা, বাঁধাকপি ছোট ৩০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

এছাড়া, পালং শাক আঁটিপ্রতি ২০ টাকা, লালশাক ২০ টাকা, পুঁইশাক ৩০ টাকা এবং লাউশাক ৩০ টাকায় বিক্রি করতে দেখা গেছে।

এদিকে মুদি পণ্যের বাজার ঘুরে দেখা গেছে, বাজারে আটার দাম ৩ থেকে ৫ টাকা বেড়ে ৩২ থেকে ৩৫ টাকা বিক্রি হচ্ছে। বাজারে মোটা চালের দাম কেজিতে ৩ থেকে ৪ টাকা কমলেও চিকন চাল এখনো বাড়তি দামেই বিক্রি হচ্ছে।

এছাড়া ছোলা ৮৫ টাকা, দেশি মুগ ডাল ১৩০ টাকা, ভারতীয় মুগ ডাল ৯০ টাকা, মাষকলাই ১২৫ টাকা, দেশি মসুর ডাল ১২০ টাকা, ভারতীয় মসুর ডাল ৮০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।

মাছের বাজার ঘুরে দেখা গেছে, আকার ভেদে প্রতি কেজি রুই ২৮০-৪০০ টাকা, সরপুঁটি ৩৮০-৪৫০ টাকা, কাতল ৩৫০-৪০০ টাকা, তেলাপিয়া ১৪০-১৮০ টাকা, সিলভার কার্প ২৫০-৩০০ টাকা, চাষের কৈ ৩০০-৩৫০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। পাঙ্গাস প্রতি কেজি ১২০-২৫০ টাকা, টেংরা ৬০০ টাকা, মাগুর ৬০০-৮০০ টাকা, আকার ভেদে চিংড়ি ৪০০-৮০০ টাকা।

মাংসের বাজার ঘুরে দেখা গেছে, ব্রয়লার মুরগি বিক্রি হচ্ছে ১৪০ টাকায়। এছাড়া লেয়ার মুরগি ১৮০ টাকা, দেশি মুরগি প্রতি পিস ৪৫০ টাকা, পাকিস্তানি লাল মুরগি প্রতি পিস ২৫০ টাকা, গরুর মাংস কেজিপ্রতি ৫০০ টাকা ও খাসির মাংস প্রতি কেজি ৭৫০ টাকায়।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


অর্থনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত


প্রতিবারের ন্যায় এবারও ১ নভেম্বর শুরু হবে আয়কর মেলা। ২০০৮ সাল থেকে এ...

অর্থনীতি | 2017-10-12 19:41:25

দুই কোটি টাকার অধিক সম্পদশালীদের কাছ থেকে সারচার্জ নেওয়া যাবে বলে হাইক...

অর্থনীতি | 2017-11-23 10:39:29

দেশে পাঠানো প্রবাসী আয়ের পরিমাণ সেপ্টেম্বর মাসে কমেছে। এ সময় মোট ৮৫ কো...

অর্থনীতি | 2017-10-03 16:31:37

বিভিন্ন দেশে ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকোর (বিএটি) একের পর এক ঘুষ ও দুর্ন...

অর্থনীতি | 2017-10-08 19:18:41

বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে তৃতীয় ক্রেডিট লাইনের বাস্তবায়নে সাড়ে চার বিলিয়...

অর্থনীতি | 2017-10-04 11:43:44

রাজধানীতে চাল-আটা, শাক-সবজি, মাছ-মাংসসহ নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের দাম বেড়...

অর্থনীতি | 2017-10-07 20:19:30

পণ্য ক্রয়ের পর ডিজিটাল রেজিস্ট্রেশন কার্যক্রমে ক্রেতাদের উদ্বুদ্ধ করতে...

অর্থনীতি | 2017-10-02 18:02:37

এবছর নিম্ন ও মধ্য আয়ের দেশগুলোর রেমিট্যান্স বৃদ্ধির পূর্বাভাস দিয়েছে ব...

অর্থনীতি | 2017-10-07 16:33:33